» পেঁয়াজের কেজি ১৫০ টাকা!

প্রকাশিত: 01. February. 2020 | Saturday

স্টাফ রিপোর্টারঃফের বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। করোনা ভাইরাসের কারণে চীন থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ করে দেওয়ায় বাজারে এ সংকট সৃষ্টি হয়েছে। ফলে বৃদ্ধি পেয়েছে পেঁয়াজের দাম। এমনই মন্তব্য করেছেন ব্যবসায়ীরা। গত চার-পাঁচ দিনের ব্যবধানে খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজি প্রতি বৃদ্ধি পেয়েছে ২৫ থেকে ৩০ টাকা। আর দাম বেড়ে যাওয়া বিপাকে পড়েছেন নিম্ন ও মধ্য আয়ের ভোক্তারা।
গতকাল শুক্রবার নগরীর বিভিন্ন খুচরা বাজারে মানভেদে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা, চায়না পেঁয়াজ ৮০ থেকে ৯০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। অথচ চার-পাঁচ দিন আগে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ১১৫ থেকে ১২০ টাকা, চায়না পেঁয়াজ ৫০ থেকে ৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। শুক্রবার নগরীর রেলষ্টেশন রোডস্থ কদমতলা বড় বাজার মোকামে মানভেদে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ১২০ থেকে ১২৫ টাকা, চায়না পেঁয়াজ ৭০ থেকে ৭৫ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। যা চার-পাঁচ দিন আগে কেজিপ্রতি দেশি পেঁয়াজ ৮০ থেকে ৮২ টাকা এবং চায়না পেঁয়াজ ৫০ থেকে ৫২ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।
নগরীর ময়লাপোতাস্থ কেসিসি সন্ধ্যা বাজারে আসা ক্রেতা জসীম উদ্দিন ব্যাপারী বলেন, ‘তিন-চার দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের বাসার অস্বাভাবিক হয়ে উঠেছে। তিনি বলেন, তিন-চার দিন আগে বাজারে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ১২০ টাকা দরে। অথচ সেই দেশি পেঁয়াজ বাজারে বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা দরে।’
বাজারে আসা আরেক ক্রেতা রনজিৎ কুমার দাশ বলেন, ‘পেঁয়াজের দাম আবারও বেড়ে গেছে। তিনি বলেন, চার-পাঁচ দিনের মধ্যে পেঁয়াজের বাজার আবারও গরম হয়ে উঠেছে। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, পেঁয়াজের দাম যেনো ইচ্ছামত বৃদ্ধি করা হয়। ব্যবসায়ীরা খামখেয়ালিভাবে পণ্যের দাম বৃদ্ধি করতে না পারে সেজন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বাজার মনিটরিং জোরদার করতে আহ্বান জানান তিনি।’
নগরীর ময়লাপোতাস্থ কেসিসি সন্ধ্যা বাজারের সুমি স্টোরের স্বত্বাধিকারী বলেন, ‘দেশি পেঁয়াজ ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। কয়েক দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।’ এছাড়া অন্য ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বললে একই মন্তব্য করেন তারা।
নগরীর বড় বাজার এলাকার মেসার্স ফরাজী ট্রেডিং’র স্বত্বাধিকারী মিলন ফরাজী বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের কারণে চার-পাঁচ দিন ধরে চায়নায় পেঁয়াজ-রসুন আমদানি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ফলে খুলনায় পেঁয়াজ-রসুনের সরবরাহ কমেছে। বাজারে এ দু’টি পণ্যের সরবরাহ চাহিদার তুলনায় অনেক কম। আর এ কারনে শুক্রবার পাইকারী বাজারে কেজিপ্রতি দেশি পেঁয়াজ ১২০ থেকে ১২৫ টাকা এবং চায়না পেঁয়াজ ৭০ থেকে ৭৫ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। তিনি বলেন, চার-পাঁচ দিন আগে ওই একই দেশি পেঁয়াজ ৮০ থেকে ৮২ টাকা এবং চায়না পেঁয়াজ ৫০ থেকে ৫২ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৭৭ বার

[hupso]